1. admin@amarsylhetnews.com : admin2020 :
  2. zoshim98962@gmaiil.com : আমার সিলেট ডেস্ক : আমার সিলেট ডেস্ক
  3. amarsylhetnews@gmail.com : আমার সিলেট নিউজ : আমার সিলেট নিউজ
  4. editor@amarsylhetnews.com : Amar SylhetNews : Amar SylhetNews

    রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৩:২০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
বাহুবলের চলিতাতলা রাস্তায় পিচ করার নমুনা দুর্নীতিই একমাত্র কারণ দৈনিক খোলা চিঠির হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি হলেন সাংবাদিক নোমান ঈদের দিনে বিশেষ কিছু আমল ৪নং জয়চন্ডী ইউনিয়নবাসীসহ ৯নং ওয়ার্ড বাসীকে ঈদে ফিরতের শুভেচ্ছা জানালেন মেম্বার পদপ্রার্থী ফজলুল আউয়াল করোনায় বিপন্ন মানুষের মাঝে হবিগঞ্জ জেলা যুবলীগের উপহার সামগ্রী বিতরণ পবিত্র ঈদ উল ফিতর উপলক্ষে চামারদানী ইউনিয়নবাসীকে ঈদের শুভেচ্ছা জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা, বিশ্বনাথ উপজেলা শাখা গঠন সম্পন্ন হিতৈষী ফাউন্ডেশন চুনারুঘাট আয়োজনে ঈদ খাদ্যসামগ্রী বিতরণ মাধবপুরে শাহজাহানপুর ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার বিতরণ সাংবাদিক আকাশ আহমেদর ঈদ শুভেচ্ছা

আজ মহান মে দিবস

  • আপডেট সময় শনিবার, ১ মে, ২০২১
  • ৫২ বার পড়া হয়েছে

মঈন উদ্দিন আহমেদ ॥ আজ ১ মে মহান মে দিবস। শ্রমজীবী মানুষের অধিকার আদায়ের রক্তঝরা সংগ্রামের গৌরবময় দিন পহেলা মে। অধিকার আদায়ে শ্রমিকদের আত্মত্যাগের স্মরণে ১৮৮৯ সালে প্যারিসে অনুষ্ঠিত ২য় আন্তর্জাতিক শ্রমিক সম্মেলনে দিনটিকে ‘মে দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সেই ধারাবাহিকতায় বিশ্বের সব দেশেই আজ শনিবার পালিত হবে মহান মে দিবস। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানের শাসন থেকে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭২ সালে বাংলাদেশে বিপুল উদ্দীপনা নিয়ে মে দিবস পালিত হয়। ওই বছরই সদ্য স্বাধীন দেশে পহেলা মে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়। প্রতিবছর রাষ্ট্রীয়ভাবে মে দিবস উদযাপন উপলক্ষে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে। দিবসটি উপলক্ষে নানা সংগঠনের পক্ষ থেকে হবিগঞ্জেও নেয়া হয় ব্যাপক কর্মসূচি। কিন্তু এ বছর করোনার প্রভাবে দিবটি অনেকটা নিরবেই পালিত হবে দেশের সর্বত্র।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতি (ব্যকস) হবিগঞ্জের সভাপতি মোঃ শামছুল হুদা জানান- প্রতি বছর মহান মে দিবস উপলক্ষে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, দোকানপাট, কলকারখানা বন্ধ রাখার জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আহবান জানানো হতো। কিন্তু এ বছর এরকম কোন নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। সামনে রয়েছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। করোনার কারণে ব্যবসায়ী শ্রমিক সকলেই ক্ষতিগ্রস্ত। তাই এ বছর মে দিবসে দোকানপাট খোলা থাকবে।
এ ব্যাপারে জেলা দোকান কর্মচারি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মোঃ ছালেক মিয়া জানান, প্রতি বছরই নানা আয়োজনে জেলা দোকান কর্মচারি শ্রমিক ইউনিয়ন মে দিবস উদযাপন করে থাকে। কিন্তু করোনার কারণে গত বছর কোন অনুষ্ঠান করা সম্ভব হয়নি। এ বছরও কোন অনুষ্ঠান পালন করা হবে না। তবে অন্যান্য বছর এ দিনে দোকানপাট বন্ধ থাকলেও এ বছর দোকানপাট খোলা থাকবে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন এমনিইে করোনার কারণে ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ। সামনে ঈদ। তাই জেলা দোকান কর্মচারি শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে শহরে মাইকিং করে দোকানপাট খোলা রাখার আহবান জানানো হয়েছে।
হবিগঞ্জ মটর মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক শংখ শুভ্র রায় জানান- প্রতি বছর নানা আয়োজনে হবিগঞ্জ মটর মালিক গ্রুপ মহান মে দিবস পালন করে থাকে। কিন্তু করোনার কারণে নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় নিয়ে এবার সকল কর্মসূচি বাতিল করা হয়েছে।
হবিগঞ্জ জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারণ সম্পাদক মোঃ সজীব আলী জানান, প্রতি বছর মহান মে দিবস উপলক্ষে সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের প্রধান কার্যালয় ও সকল আঞ্চলিক কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা এবং সংগঠনের লাল পতাকা উত্তোলন করা হয়ে থাকে। এ ছাড়া হবিগঞ্জ পৌর বাস টার্মিনালে জমায়েত, হবিগঞ্জ শহরে বর্ণাঢ্য লাল পতাকা র‌্যালি বের করা হয়। এছাড়াও আলোচনা সভা ও নিহত শ্রমিকদের পরিবারের হাতে মৃত্যু দাবির টাকা হস্তান্তর করা হয়। কিন্তু করোনার কারণে মানুষের জীবনের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে আমরা এ বছর সকল কর্মসূচি বাতিল করেছি।
উল্লেখ্য, শ্রমজীবী মানুষের এই স্বীকৃতির সূচনাকাল সহজ ছিল না। দীর্ঘ বঞ্চনা আর শোষণ থেকে মুক্তি পেতে ১৮৮৬ সালের এই দিনে বুকের রক্তে শ্রমিকরা আদায় করেছিলেন দৈনিক ৮ ঘণ্টা কাজের অধিকার। শ্রমিকদের আত্মত্যাগের বিনিময়েই সেদিন মালিকরা স্বীকার করে নিয়েছিলেন শ্রমিকরাও মানুষ। তারা যন্ত্র নয়, তাদেরও বিশ্রাম ও বিনোদনের প্রয়োজন রয়েছে। ১৮৮৬ সালের এই দিনে শ্রমিকরা আট ঘণ্টা কাজের দাবিতে যুক্তরাষ্ট্রের সব শিল্পাঞ্চলে ধর্মঘটের ডাক দিয়েছিলেন। সেই ডাকে শিকাগো শহরের তিন লাখের বেশি শ্রমিক কাজ বন্ধ রাখেন। শ্রমিক সমাবেশকে ঘিরে শিকাগো শহরের হে মার্কেট রূপ নেয় বিক্ষোভ সমুদ্রে। বিক্ষোভের এক পর্যায়ে পুলিশ শ্রমিকদের ওপর নির্বিচারে গুলি চালালে ১০ শ্রমিক প্রাণ হারান। গ্রেফতার হন শ্রমিক নেতা স্পাইস ও ফিলডেন। পরবর্তীতে হে মার্কেটের ঘটনার দায় চাপানো হয় স্পাইসসহ অন্যান্য শ্রমিক নেতার ওপর। এক সংক্ষিপ্ত ও প্রহসনমূলক বিচারে ফাঁসি হয় শ্রমিক নেতা স্পাইস, পার্সনস, ফিলডেন, মাইকেল স্কোয়ার, জর্জ এঙ্গেলস ও অ্যাডলফ ফিসারের। এর পরপরই হে মার্কেটের ওই শ্রমিক বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে সারা বিশ্বে। গড়ে ওঠে শ্রমিক-জনতার বৃহত্তর ঐক্য। অবশেষে তীব্র আন্দোলনের মুখে শ্রমিকদের দৈনিক আট ঘণ্টা কাজের দাবি মেনে নিতে বাধ্য হয় যুক্তরাষ্ট্র সরকার। পরে ১৮৮৯ সালের ১৪ জুলাই প্যারিসে অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক শ্রমিক সম্মেলনে শিকাগোর রক্তঝরা অর্জনকে স্বীকৃতি দিয়ে ১ মে তারিখটিকে ‘আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস’ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। ১৮৯০ সাল থেকে প্রতিবছর দিবসটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ‘মে দিবস’ হিসেবে পালন করতে শুরু করে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর