1. admin@amarsylhetnews.com : admin2020 :
  2. zoshim98962@gmaiil.com : আমার সিলেট ডেস্ক : আমার সিলেট ডেস্ক
  3. amarsylhetnews@gmail.com : আমার সিলেট নিউজ : আমার সিলেট নিউজ
  4. editor@amarsylhetnews.com : Amar SylhetNews : Amar SylhetNews

    মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ০২:১৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম ::
বাহুবলে আসন্ন ইউপি নির্বাচনে প্রার্থীদের দৌড়ঝাপ ৩নং সাতকাপন ইউনিয়নে ১১ প্রার্থীর প্রচারণা ও মনোনয়ন দৌড় হবিগঞ্জে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি অক্ষুন্ন রাখার অঙ্গীকার আলেম ওলামাদের নবীগঞ্জের সদর ইউপি নির্বাচনে নৌকার মাঝি হতে চান মাকাচ্ছিন মিয়া মহসিন বিয়ানীবাজারে ইয়াবাসহ নারী মাদক কারবারি গ্রেপ্তার দোয়ারাবাজারে যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার শেখ রাসেল দিবসে কর্মসূচি পালন হয়নি,কামারকান্দি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে তাহিরপুরে শেখ রাসেল দিবস উদযাপন জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে শেখ রাসেলের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে হবিগঞ্জ জেলা পরিষদের শ্রদ্ধা জ্ঞাপন বিশ্ব খাদ্য দিবস উপলক্ষে হবিগঞ্জে মানববন্ধন ও পথসভা হবিগঞ্জ শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সাজিদুর রহমানের ইন্তেকাল

চুনারুঘাটে অনৈতিক কাজের অভিযোগে দেবর-ভাবীকে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতন

  • আপডেট সময় মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ হবিগঞ্জের চুনারুঘাটে অনৈতিক কাজের অভিযোগে দেবর-ভাবীকে শিকল দিয়ে বেঁধে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। পরে স্থানীয় লোকজন শিকল দিয়ে বেঁধে তাদেরকে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান হুমায়ূন খানের জিম্মায় প্রেরণ করে। পুলিশকে ঘটনাটি অবগত করা হয়নি বলে জানিয়েছেন চুনারুঘাট থানার ওসি মোঃ আলী আশরাফ।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে চুনারুঘাট উপজেলার গাজিপুর ইউনিয়নের কোনাগাঁও গ্রামের আবুল কালামের পুত্র শাকিলকে (১৮) তারই চাচাতো ভাই ভিংরাজ মিয়ার স্ত্রীর ঘরে একা পেয়ে আটক করেন। বিষয়টি স্থানীয় ইউপি সদস্য আজাদ মিয়াকে জানালে তিনি তাদেরকে আটক রাখার সিদ্ধান্ত দেন। সেই মোতাবেক রাতে দেবর-ভাবীকে লোহার শিকল দিয়ে বেঁধে রেখে নির্যাতন করেন মুরুব্বি ও যুবকরা। মঙ্গলবার সকালে তাদেরকে পুনরায় নির্যাতন করা হয় এবং দুপুরে পুলিশ প্রশাসনকে না জানিয়ে শিকল বাঁধা অবস্থায় ৩ কিলোমিটার সড়ক দিয়ে স্থানীয় ইউনিয়ন অফিসে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে চেয়ারম্যান হুমায়ুন খান ছেলেকে তার পিতা আবুল কালামের জিম্মায় এবং মেয়েকে তার চাচা সুলতান মিয়ার জিম্মায় প্রদান করেন।
ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন খান জানান, তার অফিসে শিকল বাঁধা অবস্থায় ছেলে মেয়েকে আনা হয়নি। উভয় পক্ষের শুনানী শেষে ছেলেকে তার বাবার জিম্মায় এবং মেয়ের বাবা না থাকায় তার চাচার জিম্মায় প্রদান করা হয়েছে।
চুনারুঘাট থানার ওসি আলী আশরাফ জানান, কেউ তাদেরকে বিষয়টি অবগত করেনি।
এদিকে রাস্তা দিয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় শিকল বাঁধা দেবর ও ভাবীর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ছবিতে দেখা যায় গ্রামের রাস্তায় মেয়েটি মাথায় ঘোমটা দেয়া এবং ছেলের পরনের গেঞ্জি দিয়ে মুখ ঢাকার চেষ্টা করছে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর