সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যানসহ চার নেতাকে আ’লীগ থেকে অব্যাহতি ইনাতগঞ্জে শালিস বৈঠকে পরিকল্পিত হামলা নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতিসহ ৫জন আহত লাখাইয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ চুনারুঘাট যুব এসোসিয়েশনের ঈদ পূর্ণমিলনী ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ তাহিরপুরে প্লাবিত হয়ে প্রায় অর্ধশত গ্রাম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বাহুবল৭নং ভাদেশ্বর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সভাপতি নির্বাচিত বশির বাহুবলে পুটিজুরী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগেরত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের ঘোষনা মধ্যনগর থানার ওসি জাহিদুল হক দোয়ারাবাজারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু

হবিগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতাদের ঘরেই বিদ্রোহী প্রার্থী

  • আপডেট সময় শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ৯৭ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি ॥ হবিগঞ্জে ৪র্থ ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দুই উপজেলার দুটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতার পরিবারেই রয়েছেন বিদ্রোহী প্রার্থী। এ নিয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে সৃষ্টি হয়েছে বিরূপ প্রতিক্রিয়া।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রবিবার জেলার বানিয়াচং উপজেলার ১৪টি ও লাখাই উপজেলার ৬টি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মাঝে বানিয়াচং উপজেলার ১০নং সুবিদপুর ইউনিয়ন পরিষদে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন হবিগঞ্জ পৌর যুবলীগের সাবেক সহ-সভাপতি কাউসার চৌধুরী। তিনি বানিয়াচং উপজেলা পরিষদের নৌকা প্রতীকের বিজয়ী চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগ সদস্য আবুল কাশেম চৌধুরীর ছোট ভাই। তাদের অপর ভাই আব্বাস আলী চৌধুরী জার্মান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। বিদ্রোহী প্রার্থী হওয়ায় কাউছার চৌধুরীকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিস্কার করা হলেও তার দুই ভাইয়ের বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।
এ ব্যাপারে বানিয়াচং উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আমীর হোসেন মাস্টার বলেন, বিষয়টি জেলা আওয়ামী লীগ দেখবে। তবে আবুল কাশেম চৌধুরী তার ভাইয়ের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ না নিয়ে বরং আমাদের সাথে নৌকার প্রচারণায় অংশগ্রহণ করেছে।
এদিকে লাখাই উপজেলার মুড়াকড়ি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আবুল কাশেম মোল্লা ফয়সল। তার বড় ভাই অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম মোল্লা মাসুম জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্মসাধারণ সম্পাদক ও হবিগঞ্জের নারী শিশু ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর। আবুল কাশেম মোল্লা ফয়সলকে দল থেকে বহিস্কার করা হলেও আবুল হাশেম মোল্লা মাসুমের বিষয়ে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি।
এ ব্যাপারে লাখাই উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট মুশফিউল আলম আজাদ জানান, আমাদেরকে বিদ্রোহী প্রার্থীর নাম দিতে বলায় কারও ভাই বা আত্মীয়ের নাম দেইনি। তবে মুড়াকড়ি ইউনিয়নে বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল কাশেম মোল্লা ফয়সল এর পক্ষে সরাসরি নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম মোল্লা মাসুম। শুধু তাই নয়, ছোট ভাইয়ের পক্ষ নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পুলিশ এ্যাসল্ট মামলারও আসামী হয়েছে তিনি। এ ব্যাপারে দলীয়ভাবে ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানান তিনি।
এ ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আলমগীর চৌধুরী বলেন, এ ব্যাপারে অভিযোগ পেলে কেন্দ্রে তথ্য প্রেরণ করা হবে। কেন্দ্রীয় দিক নির্দেশনা অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর