সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যানসহ চার নেতাকে আ’লীগ থেকে অব্যাহতি ইনাতগঞ্জে শালিস বৈঠকে পরিকল্পিত হামলা নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতিসহ ৫জন আহত লাখাইয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ চুনারুঘাট যুব এসোসিয়েশনের ঈদ পূর্ণমিলনী ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ তাহিরপুরে প্লাবিত হয়ে প্রায় অর্ধশত গ্রাম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বাহুবল৭নং ভাদেশ্বর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সভাপতি নির্বাচিত বশির বাহুবলে পুটিজুরী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগেরত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের ঘোষনা মধ্যনগর থানার ওসি জাহিদুল হক দোয়ারাবাজারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু

হবিগঞ্জের আলোচিত প্রতারণা ও এক্সরে জালিয়াতির মামলায় দুই ভাইকে ১ দিনের রিমান্ড

  • আপডেট সময় রবিবার, ৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ১৪১ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টারঃ বাহুবলে এক্সরে জালিয়াত ও প্রতারণা মামলার দুই আসামীকে এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রবিবার ৩০ জানুয়ারি বিকেলে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাদের এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

শনিবার ৫জানুয়ারি বিকাল ৪ ঘটিকার সময় হবিগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাহুবল মডেল থানায় আনা হয়েছে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বাহুবল মডেল থানার এস আই জসীম উদ্দিন জানান, মামলার এজাহারভুক্ত ৫ নম্বর আসামী মো. আলকাছ মিয়া ও ৬ নম্বর আসামী মোঃ ছাদেক মিয়াকে ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত,শনিবার ৫ ফেব্রুয়ারী জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদেরকে বাহুবল মডেল থানায় আনা হয়েছে।

তিনি আরো জানান, জালিয়াতি ও প্রতারণা ঘটনায় আদালতের আর্দেশে গত ১৭ ডিসেম্বর বাহুবল মডেল থানার এস আই ফুয়াদ আহমেদ বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনের বিরুদ্ধে জাল জালিয়াতি ও প্রতারণা মামলা দায়ের করেন।

এ মামলায় কারাগারে বসবাসরত আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৫ দিনের রিমান্ড চেয়ে আবেদন করা হয়। ৩০ জানুয়ারি রবিবার আবেদনের শুনানী হয়, শুনানি শেষে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হারুনুর রশীদ ১ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।মামলার বাকী আসামীদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, হবিগঞ্জ শহরের সদর হাসপাতালের নিকট বিলাস বহুল কনসালটেন্ট ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের কর্মচারীরা দীর্ঘদিন ধরে জালিয়াতির মাধ্যমে ভূয়া এক্সরে রিপোর্ট দিয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানি ও ক্ষতিগ্রস্ত করে আসছে। বিনিময়ে তারা মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। এসব এক্সরে রিপোর্টের কারণে অনেক নিরপরাধ লোককে কারাগারে বাস করতে হচ্ছে।

উল্লেখ্য যে,গত ৩০ সেপ্টেম্বর বাহুবল উপজেলার পূর্বজয়পুর গ্রামের আখলাছ মিয়া বাদী হয়ে শিক্ষানবীশ আইনজীবি মিজানুর রহমান, সাংবাদিক নাজমুল ইসলাম হৃদয় ও জাহাঙ্গীর আলমসহ আরও কয়েকজনকে আসামী করে গ্রিভিয়াস জখম দেখিয়ে মামলা দায়ের করেন।

এরপর মামলার আসামী জাহাঙ্গীর মিয়া আদালতে হাজির হয়ে দরখাস্ত দিয়ে জখমীদের ইনজুরি জাল ও ভূয়া বলে আদালতকে অবগত করেন। আদালত এ বিষয়ে প্রতিবেদন দিতে বাহুবল থানার অফিসার ইনচার্জকে নির্দেশ দেন।

পুলিশ তদন্ত শেষে জখমী সাদেক মিয়া, আকলাছ মিয়াসহ অন্যান্যদের এক্সরে রিপোর্ট (ফিলিম) জাল ও ভূয়া বলে উল্লেখ করে প্রতিবেদন দেন তদন্ত কর্মকর্তা, বিচারক প্রতিবেদনটি আমলে নিয়ে জালিয়াত ও প্রতারক চক্রের বিরুদ্ধে মামলা রুজুর করার জন্য বাহুবল মডেল থানার ওসিকে নির্দেশ দেন।

আদালতের নির্দেশ পেয়ে বাহুবল থানার এস আই ফুয়াদ আহমেদ বাদী হয়ে চুনারুঘাট উপজেলার জুরিয়া বড় বাড়ি গ্রামের বাসিন্দা আব্দুল খালেকের পুত্র কনসালটেন্ট ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের এমডি ফারুক মিয়া,

ছোট বহুলা গ্রামের রহমত আলীর পুত্র ম্যানেজার জুয়েল মিয়া, মার্কেটিং অফিসার শাহিন মিয়া, বাহুবল উপজেলার পূর্ব জয়পুর গ্রামের মৃত জাফর উল্লার পুত্র আকলাছ মিয়া ও সাদেক মিয়াসহ আরও কয়েকজনকে আসামী করে জালিয়াত চক্রের বিরুদ্ধে ৪৬৭/ ৪৬৮/ ৪৭১/ ৪২০/১০৯ প্যানাল কোডের ধারা মতে মামলা রুজু করেন। মামলা নং-১১, তাং-১৭-১২-২০২১ইং।

এ বিষয়ে মামলার আসামী কনসালটেন্ট এর এমডি ফারুক মিয়া জানান, আমাদের রিপোর্ট সঠিক নিয়ে রোগী আলকাছ মিয়া ও তার সহযোগীরা যদি বাহির থেকে জালিয়াতি করে থাকতে পারেন,তা আমার জানা নেই।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়,বাহুবল উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা হাজী ফিরোজ মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন এমন ভুয়া এক্সরে রিপোর্টে ভুক্তভোগী হয়েছেন , এক সাক্ষাৎকারে হাজী ফিরোজ মিয়া বলেন,

আলকাছ মিয়ার ভাই রাসেল মিয়া একই রকম ভূয়া এক্সরে রিপোর্ট দিয়ে আমার পরিবারের সদস্যদের উপর মামলা করে জেল কাটিয়েছেন । তাদের এসব জালিয়াতির কারণে অনেক নিরপরাধ লোককে কারাগারে বসবাস করতে হচ্ছে।

 

বাহুবল জোরে জনসমক্ষে শুনা যাচ্ছে কে হতে পারে এই জালিয়াতি ও প্রতারণা মুলহোতা এমন প্রশ্ন সকলের মনে বিরাজ করছে ।

এ ঘটনার মূলহোতা সহ জড়িতদের দৃষ্ঠান্তমূলক শাস্তি দাবী করেছেন ভোক্তভূগীসহ সচেতন মহল।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর