সংবাদ শিরোনাম ::
হবিগঞ্জ সদর উপজেলা চেয়ারম্যানসহ চার নেতাকে আ’লীগ থেকে অব্যাহতি ইনাতগঞ্জে শালিস বৈঠকে পরিকল্পিত হামলা নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতিসহ ৫জন আহত লাখাইয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল ও পুরস্কার বিতরণ চুনারুঘাট যুব এসোসিয়েশনের ঈদ পূর্ণমিলনী ও সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ তাহিরপুরে প্লাবিত হয়ে প্রায় অর্ধশত গ্রাম যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন বাহুবল৭নং ভাদেশ্বর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বিনা প্রতিদ্বন্দিতায় সভাপতি নির্বাচিত বশির বাহুবলে পুটিজুরী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগেরত্রি-বার্ষিক সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত মাদক ও জুয়ার বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্সের ঘোষনা মধ্যনগর থানার ওসি জাহিদুল হক দোয়ারাবাজারে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে যুবকের মৃত্যু

মাধবপুরে কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রোভাইডরের বিরুদ্ধে কোভিট ভ্যাকসিন নিতে টাকা নেয়ার অভিযোগ

  • আপডেট সময় বুধবার, ৩০ মার্চ, ২০২২
  • ২৮ বার পড়া হয়েছে

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের মাধবপুরে কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রোভাইডর জিল্লুর রহমানের বিরুদ্ধে কোভিড ভ্যাকসিন নিতে টাকার নেবার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় সামজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে একটি ভিডিও প্রচার হলে তা নিয়ে শুরু হয় আলোচনা। জিল্লুর রহমান বিদেশগামীদের কোভিডের ভুয়া সনদ প্রদান করেন। ভুয়া সনদ নিয়ে প্রবাসগামী যাত্রীরা বিমানবন্দরে গিয়ে আটক হয়ে বাড়িতে ফিরে আসছেন। এ ব্যাপারে কমিউনিটি ক্লিনিক পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) বরাবরে নিকট লিখিত অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী।
লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, মাধবপুর উপজেলার চৌমুহনী ইউনিয়নের বানিয়াপাড়া কমিউনিটি ক্লিনিকের প্রোভাইডর জিল্লুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে কমিউনিটি ক্লিনিক নিজের মত করে চালাচ্ছেন। এলাকাবাসী তার কাছ থেকে ঔষধ আনতে গেলে ৫০ থেকে ১শ’ টাকা দিতে হয়। টাকা না দিলে ঔষধ দেয়া হয় না। তার বাড়িতে দেওয়া হয় কোভিড এর ভ্যাকসিন। এমন কি বিদেশগামীদের ভুয়া কোভিড ভ্যাকসিনের সনদ দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছেন টাকা। বিদেশগামীরা বিমান বন্দরে গিয়ে কোভিডের এই ভুয়া সনদ দেখালে যাত্রীদের আটকে দিচ্ছে বিমান কর্তৃপক্ষ। পরে বিদেশগামীরা জিল্লুর রহমানের বাড়িতে এসে প্রতিবাদ করেন। জিল্লুর এর ভ্যাকসিন দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে একটি ভিডিও সামাজিক যোগাাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা নিয়ে শুরু হয় আলোচনা।
গত রবিবার স্বাস্থ্য পরিদর্শক প্রিয় লাল ঘোষ সরেজমিন ক্লিনিক পরিদর্শন করতে গেলে জিল্লুর রহমানের অফিস ফাঁকির বিষয়টি ধরা পড়ে। ওইদিন সে কমিউনিটি ক্লিনিকে যায়নি। অফিস থেকে কোন ছুটিও নেয়নি। জিল্লুর রহমানের স্থলে তার স্ত্রী দায়িত্ব পালন করছেন। তখন স্বাস্থ্য পরিদর্শক জিল্লুর এর স্ত্রীকে জিল্লুর কোথায় আছে জানতে চাইলে তিনি জানান, তার স্বামী অসুস্থ তাই তিনি দায়িত্ব পালন করছেন। পরে স্বাস্থ্য পরিদর্শক প্রিয় লাল ঘোষ ক্লিনিকের পরিদর্শন বহিতে মন্তব্য কলামে জিল্লুর এর অনুপস্থিতিতে তার স্ত্রী দায়িত্ব পালন করার বিষয়টি নোট করেন।
জিল্লুরের বিভিন্ন অনিয়ম ও দূর্নীতির বিরুদ্ধে আরিছপুর গ্রামের শফিক মিয়া কমিউনিটি ক্লিনিক স্বাস্থ্য সহায়তা ট্রাস্ট এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) এর নিকট একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন এবং জেলা সিভিল সার্জন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমকর্তার নিকট অনুলিপি দিয়েছেন।
আরিছপুর গ্রামের বাসিন্দা কমিউনিটি ক্লিনিকের জমিদাতার ছেলে মাসুম আহামেদ জানান, তার মা সম্প্রতি কমিউনিটি ক্লিনিকে ঔষধ আনতে গেলে তার মাকে খারাপ আচরণ করে বের করে দেওয়া হয়।
আরিছপুর গ্রামের গৃহবধু ফাহমিদা আক্তার, রাশিদা বেগম, আমিনা খাতুন জানান, কমিউনিটি ক্লিনিক থেকে যে প্রাথমিক সেবাটা পাওয়ার কথা সেটাও টাকা ছাড়া পাওয়া যায় না। জিল্লুর এর বাড়ির পাশে কমিউনিটি ক্লিনিক হওয়ায় জিল্লু কমিউনিটি ক্লিনিকে না গিয়ে মোশারফ কর্ণার নামে বাড়িতে একটি ফার্মেসী চালান। প্রায় সময় জিল্লুরের জায়গায় তার স্ত্রী কমিউনিটি ক্লিনিকের দায়িত্ব পালন করেন।
কমিউনিটি ক্লিনিকের স্বাস্থ্য সহকারী মাহমুদ আক্তার জানান, তিনি ৩ দিন ক্লিনিকে আর ৩ দিন মাঠে দায়িত্ব পালন করেন। জিল্লুর অনেকের নিকট থেকে ঔষধের নামে টাকা নেয়। তাই মানুষ না বুঝে টাকা নিয়ে এসেছে।
এ ব্যাপারে জিল্লুর এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ভাইরাল হওয়া ভিডিও এডিট করা। আর অভিযোগ গুলো মিথ্যা।
মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ ইশতিয়াক আল মামুন জানান, জিল্লুরের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর