সংবাদ শিরোনাম ::
জুড়ীতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা বিনয় ব্যানার্জীকে গণসংবর্ধনা সিলেটে জালালাবাদ লিভার ট্রাস্টের উদ্যোগে লিভার সচেতনতা বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত শ্রীমঙ্গল এসোসিয়েশন অব ভলান্টারি এফোর্টস (সেভ) এর উদ্যোগে নতুন বস্ত্র ও হুইল চেয়ার বিতরণ জুড়ীতে মুজিববর্ষে চা শ্রমিকদের ফ্রি বিদ্যুৎ সংযোগ নিয়ে পিডিবির অনিয়ম শেখ হাসিনার ৭৬তম জন্ম দিন : মিরপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের বৃক্ষ রোপন যুক্তরাজ্য আইনজীবী ফোরামের উদ্যোগে বন্যার্তদের বিনামূল্যে চিকিৎসা ও ওষুধ বিতরণ মধ্যনগরে গুমাই নদীতে অবৈধ ড্রেজার, হুমকিতে ফসলি জমি বাহুবলে মীনা দিবসের ২০ হাজার টাকা বরাদ্দ ॥ নামকাওয়াস্তে পালন জুড়ীর মাসুক চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি তাহিরপুরে বিদ্যালয়ে নিয়োগ বাণিজ্যের অভিযোগ

বাহুবলে মধুপুর সহ ১০টি চা বাগানে শ্রমিকদের মজুরী বৃদ্ধির দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

  • আপডেট সময় বুধবার, ১০ আগস্ট, ২০২২
  • ৫৬ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্টার ।। হবিগঞ্জের বাহুবল উপজেলার ৩নং সাতকাপন ইউপির মধুপুর সহ ১০টি চা বাগানে শ্রমিকদের ১৪টাকা মজুরী বৃদ্ধি করে জনপ্রতি ৩০০ টাকা মজুরী বৃদ্ধির দাবিতে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

গতকাল মঙ্গলবার বেলা ৯ টায় মধুপুর চা বাগানের অফিসের সামনে বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়ন এর অন্তর্ভুক্ত বালিশিরা ভ্যালী কার্যকরী পরিষদ কর্তৃক বাংলাদেশীয় চা সংসদ ও বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের মধ্যকার ২০২১-২০২২খ্রি. দ্বি-বার্ষিক, দ্বি-পাক্ষিক শ্রমচুক্তির দ্রুত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে এ মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভার শুরুতেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য সহধর্মিণী এবং সহযোদ্ধা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে শ্রদ্ধা নিবেদন এবং প্রয়াত চা শ্রমিক নেতা ও শ্রমিকদের বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়েছে।

মধুপুর চা বাগান পঞ্চায়েত সভাপতি গোপাল চন্দ্র গোরাইত সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক হরিনারায়ন গোয়ালা এর পরিচালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের বালিশিরা ভ্যালী প্রতিনিধি সুভাষ রঞ্জন দাস ও সম্পাদকবৃন্দ।

বাহুবল উপজেলায় মধুপুর সহ১০ টি চা বাগানের শ্রমিকরা মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভায় পালন করেন । বক্তারা বলেন, ১৪ টাকা মজুরী বৃদ্ধি করে জনপ্রতি ৩০০ টাকা মজুরী নির্ধারণের প্রস্তাবে চা শ্রমিকদের নেহায়েত বাঁচার জন্য খাদ্য, বস্ত্র, চিকিৎসা, সন্তানদের লেখাপড়া ও আনুষাঙ্গিক খরচ ইত্যাদি বৃদ্ধিতে চা শ্রমিকদের জীবন সংগ্রাম অনেক কষ্টের হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ছয় মাস মাতৃত্বকালীন ছুটির দাবি ও দূর্গা পূজার আগে বকেয়া বোনাস প্রদান সহ এই মজুরী বৃদ্ধি হলে কোন রকম শ্রমিকরা বেচে থাকতে পারবে। তারা সব দিকেই অবহেলিত।

দ্বি-বার্ষিক, দ্বি-পাক্ষিক আলোচনা সভা দীর্ঘ ১৯ মাস ধরে চালিয়ে যাচ্ছেন। তাদের দাবি পূরণ না হলে ২ ঘন্টা করে প্রতিদিন কর্মবিরতির মাধ্যমে এ প্রতিবাদ সভা চালিয়ে যাবেন। তারা দ্রুত এ সমস্যার সমাধান চান।

শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর